মেয়াদ উত্তীর্ন নষ্ট প্রসাধনী দ্রব্য উদ্ধার গ্রেফতার ৫

প্রকাশিত: ৩:৫৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৭, ২০২০

“প্রেস বিজ্ঞপ্তি”মেয়াদ উত্তীর্ন নষ্ট প্রসাধনী দ্রব্য সরবরাহকারী চক্র গ্রেফতার ও ১০ কোটি টাকার অধিক মালামাল উদ্ধার। সূত্রঃ ভাটারা (ডিএমপি) থানার মামলা নং-৪০, তারিখঃ ২৬/০৮/২০২০ খ্রিঃ ধারাঃ ১৯৭৪ সনের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫-গ এর (১)(খ)/২৫-ঙ

অবৈধ আমদানী লাইসেন্সের মাধ্যমে দুবাই সহ বিভিন্ন দেশ হতে আমদানীকৃত বিশ্বের নামী-দামী ব্র্যান্ডের প্রসাধনী বাংলাদেশে আমদানী করে খোলা বাজারে বিক্রি করে আসছে একাধিক প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে সুধীর মন্ডল ও তার সহযোগীগণ SPS Corporation নামে কোম্পানী খুলে Wipro Enterprise I Hankel কোম্পানীর মাল বিপনণ করে আসছে। এই সমস্ত আমদানীকৃত পন্য রাজধানী ঢাকার গুলশান বনানী উত্তরা অভিজাত এলাকার বিপনী বিতান সহ ঢাকার বাহিরে জেলা শহরগুলোর বিভিন্ন দোকানেও বিক্রি করে আসছে।

এই সমস্ত আমদানীকৃত পন্যের গায়ে প্রায় সব গুলিতেই মেয়াদ উত্তীর্নের তারিখ লেখা থাকে। সচেতন ক্রেতা সাধারন অধিক মূল্যে বিশ্বের নামী-দামী ব্র্যান্ডের পন্য দোকান থেকে ক্রয় করে থাকে। অধিকাংশ  পন্যের মেয়াদের সঠিকতা যাচাইয়ের জন্যে Expiry Date লেখা দেখে ক্রেতাগণ পণ্য ক্রয় করে থাকে। আমদানীকৃত এই সকল পন্যের একটি বড় অংশ বিভিন্ন দোকানে মেয়াদ উত্তীর্ন হওয়ার পরও অবিক্রিত থেকে যায়। BSTI এর বিধিমালা ও বাংলাদেশের প্রচলিত আইন অনুসারে এ সমস্ত পন্য বিক্রেতা কর্তৃক স্বউদ্যোগে অথবা সরবরাহকারীর নিকট ফেরত প্রদানের মাধ্যমে স্ব-উদ্যোগে ধ্বংস করে ফেলার কথা। কেননা মেয়াদ উত্তীর্ন বডি লোশন, সাবান, পাউডার কসমেটিকস পন্য ব্যবহারে ত্বক ও স্বাস্থ্যের ক্ষতি বা জনস্বাস্থ্যের ঝুকির সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু বাস্তবতা হল কিছু অবৈধ ও অসাধু ব্যবসায়ী চক্র দোকানে থাকা এই সকল অবিক্রিত মেয়াদ উত্তীর্ন দেশী বিদেশী পন্য নাম মাত্র মূলে ক্রয় করে সেগুলোর মেয়াদ উত্তীর্নের সিল বিশেষ পক্রিয়ায় মুছে ফেলে তাতে শিল্পকারখানায় ব্যবহৃত সমমানের মেশিনের সাহায্যে পুনরায় তাদের ইচ্ছা মাফিক নতুন মেয়াদ উত্তীর্নের তারিখ বসিয়ে তা নামী-দামী বিপনী কেন্দ্রে বিক্রি করে যাচ্ছে। এটি একটি গর্হিত ও দন্ডনীয় অপরাধ এবং সরলমনা ক্রেতা সাধারনের সঙ্গে প্রতারনা ও বিশ্বাস ভঙ্গের অপরাধ। এতে জনস্বাস্থ্যের ঝুকি যেমন বাড়ছে তেমনি সরকারের রাজস্ব ফাকি দিয়ে মেয়াদ উত্তীর্ন অবৈধ পন্য খোলা বাজারে বিক্রয়ের প্রবনতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ইতিপূর্বে একাধিক আইন শৃংঙ্খলা রক্ষা বাহিনী এবং মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে এ ধরনের মালামাল জব্দ পূর্বক আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

বাংলাদেশ পুলিশ সিআইডি, ঢাকা মেট্রো দক্ষিণের একটি গোয়েন্দা দল গোপন সংবাদ মারফত এ ধরনের একটি অপরাধী চক্রের সন্ধান পায়। এর প্রেক্ষিতে গত ২৫/০৮/২০২০ ইং তারিখ রাজধানীর সাঈদ নগর ভাটারা এলাকায় অভিযান চালিয়ে উক্ত অপরাধী চক্রের প্রধান সুধীর মন্ডল-এর নিজস্ব ৫ম তলা ভবনের গুদাম হতে YARDLEY লোশন, YARDLEY সাবান, YARDLEY পাউডার, বডি স্প্রে ইত্যাদি সহ প্রায় ১০ (দশ) কোটি টাকার অধিক মালামাল জব্দ করে। প্রসাধনীর গায়ে ম্যানুফ্যাকচারিং ও মেয়াদ উত্তীর্নের তারিখ পরিবর্তনে ব্যবহৃত কেমিক্যাল, কালি ও একটি মেশিন উদ্ধার করা হয়। ঘটনার সাথে জড়িত ১। শংকর মন্ডল (৩৪), ২। মোঃ হারুন অর রশিদ (৪৫), ৩। মোঃ সবুজ আহমেদ (৩০), ৪। মোঃ মনিরুজ্জামান (২৩) ও ৫। বীরেশ্বর মন্ডল (৩৬)দের গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ পূর্বক রিমান্ড আবেদন জানালে বিজ্ঞ আদালত ০৩ (তিন) দিনের পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এই সংক্রান্তে ভাটারা থানার মামলাটির তদন্ত অব্যাহত আছে।